July 1, 2022, 4:42 am
শিরোনাম :
শিহাবের মৃত্যু: সৃষ্টি স্কুলের ৯ শিক্ষক আটক বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স কাউন্সিলের ‘ইন্ট্রোডাকশন টু এসডিজিজ’ শীর্ষক ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত ইয়েস বাংলাদেশের আয়োজনে তিন দিনব্যাপী সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা এনসিটিএফ’র আয়োজনে তিন দিনব্যাপী সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা শুরু বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম একাডেমিক কাউন্সিল সভা অনুষ্ঠিত রাবির নবনিযুক্ত উপাচার্যকে ও উপ-উপাচার্যকে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শুভেচ্ছা প্রদান “আত্মবিশ্বাস আসে জ্ঞান থেকে” বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার ওয়েবিনারে সোলায়মান সুখন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ও বরেন্দ্র উন্নয়ন প্রচেষ্টা’র সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টের স্থায়ী ক্যাম্পাস পরিদর্শন জাতীয় শোক দিবসে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের “ওয়েবিনার ও অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিত “

দেশের প্রথম অর্গানিক চা বাগান

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, জুলাই ৩, ২০২১
  • 10 Time View

সাদিক উল ইসলাম

কাজী এন্ড কাজী টি এস্টেট, পঞ্চগড়

চা বাগানের কথা উঠলেই সর্বপ্রথম মনে হয় সিলেট বা শ্রীমঙ্গল। উচু নিচু সবুজে ঘেরা টিলা আর পাহাড়ের গাঁ বেঁয়ে সারি সারি চা গাছ। কিন্তু সমতল ভূমিতেও যে চা বাগান হতে পারে তা পঞ্চগড় না এলে বোঝা যাবে না। দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে গড়ে উঠেছে অর্গানিক চায়ের প্রাণ জুড়ানো বাগান। এ দেশে অর্গানিক ও দার্জিলিং জাতের চায়ের চাষ হয় একমাত্র তেঁতুলিয়ার চা বাগান গুলোতে।
ইতিমধ্যে এ চা দেশের বাইরেও সুনাম অর্জন করেছে। কাজী এন্ড কাজী টি এস্টেটে পঞ্চগড় জেলার তেতুলিয়া উপজেলার রওশনপুর গ্রামে অবস্থিত। শহর থেকে কাজী টি এস্টেট এর দূরত্ব আনুমানিক ৫৫ কিলোমিটার। সৌখিনতা ও নান্দনিকতায় মানুষ কী না করতে পারে তার এক নিদর্শন হচ্ছে কাজী এন্ড কাজী টি এস্টেটের ব্যক্তিগত বাংলো এবং অফিস কার্যালয়ের পুরো জায়গাটি। এই বাংলোকে স্হানীয়রা আনন্দধারা রিসোর্টও বলে। প্রকৃতি আর আধুনিকতা যখন মিশে যায়, তখন এক আদি আর অকৃত্রিম নৈসর্গিক পরিবেশের সৃষ্টি হয় । দৃষ্টিনন্দন গেট পেরিয়ে, ডান দিকে রয়েছে লতাপাতার ছায়ায় অন্ধকারাচ্ছন্ন এক প্রবেশপথ। চারিদিকে সবুজের সমারোহ, সে পথের শেষ প্রান্তে গেলেই চোখে পরবে আধুনিক ধাঁচে গড়া কিছু দৃষ্টিনন্দন কাঠের কটেজ, খোলা মাঠ, মনোরম এই পরিবেশের মাঝ দিয়ে বয়ে চলেছে একটি লেক। লেক
পানি অতাত্ত্ব স্বচ্ছ এবং পরিস্কার। লেকের ঠিক মাঝেই ব্রিজ তারপরেই দৃষ্টিনন্দন বিশ্রামাগার। এই রিসোর্ট টি বেশ বড় একটি অংশ জুড়ে বিস্তৃত। চমৎকার এই সবুজের সমারোহ দৃষ্টিনন্দন রিসোর্ট টি তে আগাত অতিথিদের মুগ্ধ করবে । এক এক কটেজের নির্মান শৈলী এক এক রকম। ব্রিজ থেকে শুরু করে হাঁটার রাস্তা, লেক, বিশ্রামাগার, বাংলো, কাঠের কটেজ সবকিছুতেই আভিজাত্য আর নান্দনিকতার স্পষ্ট ছাপ রয়েছে। আর রিসোর্টের বাইরে রয়েছে কাজী এ্যান্ড কাজী টি এস্টেটের অর্গানিক চা বাগানের আলোছায়াময় সুন্দরয্যে।

কিভাবে যাবেন:

সড়ক কিংবা রেল পথই পঞ্চগড় যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম। ঢাকা থেকে পঞ্চগড়গামী দূরপাল্লার বাসে বা ট্রেনে পঞ্চগড় এসে তারপর তেতুলিয়া-বাংলাবান্ধাগামী লোকাল বাসে এক ঘন্টায় তেতুলিয়া পৌঁছানো যাবে।তারপর সেখান থেকে অটো রিকসা, ভ্যান, ব্যক্তিগত গাড়ি ভাড়া করে জেলা পরিষদ ডাকবাংলো কিংবা পিকনিক কর্নার, চা বাগান, কমলা বাগান এছাড়াও বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর জিরো পয়েন্ট যেতে পারেন।

কোথায় থাকবেন:

তেতুলিয়া, বাংলাবান্ধা বেড়াতে যেতে হলে আপনাকে পঞ্চগড় শহরে থাকার প্রস্তুতি নিয়ে যেতে হবে, তবে পূর্বানুমতি নিয়ে তেতুলিয়া ডাকবাংলোতে রাত্রিযাপন করতে পারেন। এজন্য আগে ভাগে আপনাকে সিট বুক করতে হবে। এছাড়া জেলা পরিষদের একটি বাংলো রয়েছে, সেখানে থাকতেও আগাম বুকিং দিয়ে রাখতে হবে । তবে শীত মৌসুমে এগুলোতে সিট পাওয়া দুষ্কর। রাত যাপনের জন্য পঞ্চগড় জেলা শহরে
বেশ কিছু ভালো আবাসিক হোটেল ও রেস্ট হাউস রয়েছে এসি, ননএসি এ দুই ধরনের রুম পাওয়া যায়। জেলা সদরে কিছু সুনামধন্য আবাসিক হোটেল ও রেস্ট হাউজের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো পঞ্চগড় শহরে
অবস্থিত সেন্ট্রাল গেষ্ট হাউজ, পঞ্চগড় সদর বাজারে রয়েছে হোটেল মৌচাক, হোটেল রাজনগর আরো সামনে গেলে চোখে পরবে কদমতলায় অবস্থিত হিলটন বোডিং (আবাসিক) প্রভৃতি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2022 shikkhajob.com
Developed by: MUN IT-01737779710
Tuhin